কুড়িগ্রাম বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬:৫৫ এএম

শিরোনাম
  ছয়মাস থেকে পলিথিনের নীচে বসবাস ছালমা বেগমের       উলিপুরে PSDO এর বিনামূল্যে ব্লাড গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন       কৃত্রিম জলাবদ্ধতায় অনিশ্চিত আমন আবাদ, খাল খননের দাবী       আমন চারার সংকটে কুড়িগ্রামের কৃষকেরা       বন্যার্তদের পাশে রাশিদা আওয়াল ফাউন্ডেশন       ভূরুঙ্গামারীতে রাস্তা থেকে কেটে নেয়া গাছ উদ্ধার       ভুরুঙ্গামারী হাসপাতালে সেনাবাহিনীর করোনা উপকরণ সামগ্রী হস্তান্তর       চিলমারীকে দীর্ঘমেয়াদী বন্যার কবল থেকে রক্ষার্থে মানববন্ধন       ভূরুঙ্গামারীতে “নো মাস্ক নো ট্রাভেল” ক্যাম্পেইন       সেচ্ছাসেবী সংগঠনের সাথে যৌথভাবে কাজ করবে “ভূরুঙ্গামারী উন্নয়ন সংস্থা”    
 

শঙ্কা থেকেই সুরক্ষা

প্রকাশিত সময়: মে, ১১, ২০২০, ১০:১০ অপরাহ্ণ  

 
 

নুসরাত জাহান:
কলেজ বন্ধ। কতদিন থেকে বাড়ীতে আছি। খুব ইচ্ছে করে, বাড়ীর সামনের সবুজ মাঠে, ক্ষেতে সেই পুরোনো দিনের মত  বিচরণ করতে। চাচতো- ফুপাতো সব ভাই-বোনেরা মিলে হৈ-হুল্লোড় করতে। পুরোনো সেই দিন গুলো খুব মনে পরে।

আমার ৮ম শ্রেণীতে পড়ুয়া ছোট ভাইটাকে তো একরকম ধরে বেঁধেই ঘরে থাকতে বাধ্য করা হচ্ছে। দুরন্ত কিশোর, তাকে ঘরে আটকে রাখা অসাধ্য প্রায়। কিন্তু পরিস্থিতির স্বীকারে এই অসাধ্যটাকেই সাধন করতে হচ্ছে আজ আমাদের। কারন, করোনা নামক ভাইরাসের ভয়াল গ্রাসে আজ আমরা বন্দী। প্রায় ২০ বছর থেকে আব্বুর ডায়াবেটিস, দাদীর বার্ধক্য জনিত অসুখ, আম্মুও ইদানীং টুকটাক অসুস্থতায় ভোগেন। আমাদের এই ছোট্ট গ্রামের অনেক লোকই কর্মসূত্রে ঢাকায় থাকেন। মহামারীর সাধারণ ছুটি পেয়ে তাদের সিংহভাগই চলে এসেছেন গ্রামে। ভয় হয় প্রতিনিয়ত, কোন মাধ্যমে করোনা নামক এই কালনাগের  ছোবল এখান অবধি পৌঁছে যাবে নাতো! আমি কিংবা ছোটভাই আমরা বয়সে কারনে, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার জোরে বেঁচে যাব হয়তো। কিন্তু আব্বু, আম্মু, দাদী! তারা এই ভয়াবহতা প্রতিরোধ করতে পারবে তো! রোগে ভোগা এ মানুষ গুলোর রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা তো এমনিতেই অনেক কম। পরিবারের প্রিয় মানুষ গুলোকে ভাল রাখতে হলে তো আমাদের নিজেদের সচেতনতা অবলম্বন করতে হবে। কাছের মানুষগুলোর প্রতি শঙ্কা থেকেই নিজেদের সুরক্ষিত রাখবার সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা।


ট্যাগঃ

   
 
আরও পড়ুন
 
 
Top