কুড়িগ্রাম বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭:৪৫ এএম

শিরোনাম
  ছয়মাস থেকে পলিথিনের নীচে বসবাস ছালমা বেগমের       উলিপুরে PSDO এর বিনামূল্যে ব্লাড গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন       কৃত্রিম জলাবদ্ধতায় অনিশ্চিত আমন আবাদ, খাল খননের দাবী       আমন চারার সংকটে কুড়িগ্রামের কৃষকেরা       বন্যার্তদের পাশে রাশিদা আওয়াল ফাউন্ডেশন       ভূরুঙ্গামারীতে রাস্তা থেকে কেটে নেয়া গাছ উদ্ধার       ভুরুঙ্গামারী হাসপাতালে সেনাবাহিনীর করোনা উপকরণ সামগ্রী হস্তান্তর       চিলমারীকে দীর্ঘমেয়াদী বন্যার কবল থেকে রক্ষার্থে মানববন্ধন       ভূরুঙ্গামারীতে “নো মাস্ক নো ট্রাভেল” ক্যাম্পেইন       সেচ্ছাসেবী সংগঠনের সাথে যৌথভাবে কাজ করবে “ভূরুঙ্গামারী উন্নয়ন সংস্থা”    
 

শিক্ষকদের বিরুদ্ধে নকলে সাহায্যের অভিযোগ বহিষ্কৃত শিক্ষার্থীদের

প্রকাশিত সময়: ফেব্রুয়ারি, ১১, ২০২০, ০৯:৫৭ অপরাহ্ণ  

 
 

ডেস্ক রিপোর্ট: ‘পরীক্ষার হলে দায়িত্বে থাকা শিক্ষকরা নৈর্বেত্তিক প্রশ্নের উত্তর বলে দেন। আর পরীক্ষা শুরুর সাথে সাথে হল থেকে বাইরে চলে যায় বর্ণনামূলক প্রশ্ন। হলের বাইরে আগে থেকে প্রস্তুত থাকা শিক্ষক ও অভিভাবকরা উত্তর প্রস্তুত করে বাহক মারফত আবারও পরীক্ষা হলে পৌঁছে দেন। এভাবেই শিক্ষার্থীদের নকল সরবরাহ করে তাদের ভবিষ্যত নষ্ট করে দেওয়া হচ্ছে।’ মঙ্গলবার (১১ ফেব্রুয়ারি) এসএসসি গণিত পরীক্ষায় কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার দুর্গাপুর উচ্চ বিদ্যালয় পরিদর্শন করে কেন্দ্র পরিস্থিতির কথা এভাবেই বর্ণনা করছিলেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী মেজিস্ট্রেট তানজিলা তাসনিম।

মঙ্গলবার (১১ ফেব্রুয়ারি) এসএসসি গণিত পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বনের দায়ে ওই কেন্দ্রের তিন শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়।
নির্বাহী মেজিস্ট্রেট তানজিলা তাসনিম বলেন,‘ ওই কেন্দ্র সম্পর্কে অনেক অভিযোগ রয়েছে। বিদ্যালয়টির এক শিক্ষকের সন্তান ওই কেন্দ্রের পরীক্ষার্থী হওয়ায় সেখানে নিয়ম বহির্ভুতভাবে কিছু বাড়তি সুবিধা দেওয়া হচ্ছে বলে আমরা অভিযোগ পেয়েছি। পরে গণিত পরীক্ষায় আমি নিজে সেখানে উপস্থিত থেকে কয়েকজনকে নকল সহ হাতেনাতে ধরেছি। পরে ওই শিক্ষার্থীরা স্বীকার করেছে যে, কেন্দ্রে দায়িত্ব পালন করা শিক্ষকরাই বিভিন্ন ভাবে শিক্ষার্থীদের নকলে সহায়তা করছেন।’
কেন্দ্রের সার্বিক পরিস্থিতি দেখে অসন্তোষ প্রকাশ করে এই নির্বাহী মেজিস্ট্রেট আরও বলেন, ‘ এভাবে পরীক্ষা নিলে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হবে শিক্ষার্থীরা । আর তাতে এদেও ভিত্ত দূর্বল হয়ে সামনে মেধাশূন্য প্রজন্ম তৈরি হতে থাকবে।’ শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে শিক্ষকরা নৈতিকতা বজায় রেখে দায়িত্ব পালন করবেন বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার গণিত পরীক্ষায় দুর্গাপুর উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে তিন শিক্ষার্থী বহিষ্কৃত হয়। এ নিয়ে চলমান এসএসসি পরীক্ষায় ওই কেন্দ্রে মোট ৯ জন শিক্ষার্থী বহিষ্কৃত হলো। পরীক্ষা চলাকালীন বাইরে থেকে নকল সরবরাহ সহ পরীক্ষার পর অনেক শিক্ষার্থীর উত্তরপত্র লিখে দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে এই কেন্দ্রে দায়িত্বরত শিক্ষকদের বিরুদ্ধে। তবে কেন্দ্র সচিব ও দুর্গাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক উৎপল কান্তি সরকার এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।


ট্যাগঃ

   
 
আরও পড়ুন
 
 
Top