কুড়িগ্রাম রবিবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:৪০ এএম

শিরোনাম
  ছয়মাস থেকে পলিথিনের নীচে বসবাস ছালমা বেগমের       উলিপুরে PSDO এর বিনামূল্যে ব্লাড গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন       কৃত্রিম জলাবদ্ধতায় অনিশ্চিত আমন আবাদ, খাল খননের দাবী       আমন চারার সংকটে কুড়িগ্রামের কৃষকেরা       বন্যার্তদের পাশে রাশিদা আওয়াল ফাউন্ডেশন       ভূরুঙ্গামারীতে রাস্তা থেকে কেটে নেয়া গাছ উদ্ধার       ভুরুঙ্গামারী হাসপাতালে সেনাবাহিনীর করোনা উপকরণ সামগ্রী হস্তান্তর       চিলমারীকে দীর্ঘমেয়াদী বন্যার কবল থেকে রক্ষার্থে মানববন্ধন       ভূরুঙ্গামারীতে “নো মাস্ক নো ট্রাভেল” ক্যাম্পেইন       সেচ্ছাসেবী সংগঠনের সাথে যৌথভাবে কাজ করবে “ভূরুঙ্গামারী উন্নয়ন সংস্থা”    
 

আসন্ন বাজেটে কুড়িগ্রামে বিশেষ বরাদ্দের দাবী

প্রকাশিত সময়: জুন, ৮, ২০২০, ০৪:৪১ অপরাহ্ণ  

 
 

কল্লোল রায়, স্টাফ রিপোর্টার:
আসন্ন জাতীয় বাজেটে দেশের সবচেয়ে গরীব জেলা কুড়িগ্রামের জন্য বিশেষ বরাদ্দের দাবিতে ৯ উপজেলা ও বিভিন্ন ইউনিয়নে মানববন্ধন অনুষ্টিত হয়েছে।

সোমবার একই সময় সকাল ১১টা থেকে ১২টা এক ঘন্টা স্থায়ী মানববন্ধনের আয়োজন করে রেল নৌ যোগাযোগ ও পরিবেশ উন্নয়ন গণকমিটির। এ সময় তারা ফেষ্টুন ও প্লাকাডে দাবী সমুহ তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন আগামী ১০ জুন জাতীয় বাজেট পেশ হতে যাচ্ছে। এই বাজেটে কুড়িগ্রামের জন্য বিশেষ বরাদ্দ থাকতে হবে, এছাড়া একটি মেডিকেল কলেজ স্থাপন, প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় বাস্তবায়ন, চারাঞ্চলের উন্নয়নে থোক বরাদ্ধ, জেলার ১৬টি নদনদীর ভাঙ্গন রোধ, কুড়িগ্রাম ভূরুঙ্গামারী সোনাহাট ও রৌমারী স্থলবন্দর পর্যন্ত রেললাইন এবং গ্যাস লাইন সম্প্রসারণ, দ্রুত চিলমারী নৌবন্দর চালু করাসহ বিশ দফা দাবিতে, রেল -নৌ যোগাযোগ ও পরিবেশ উন্নয়ন গণকমিটি এ কর্মসূচী পালন করে।

সোমবার সকাল ১১টায় কুড়িগ্রাম শহরের কুড়িগ্রাম শহরের কলেজ মোড়ে জেলা কমিটির সভাপতি তাজুল ইসলাম ও সাধারন সম্পাদক প্রদীপ রায়ের নেতৃত্বে ও সদর উপজেলার ঘোগাদহ ইউনিয়নে মামুন উর রশিদ ও খোরশেদ আলমের নেতৃত্বে, কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ আলি এটম, জেলা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক খন্দকার আরিফ ও উপজেলা সভাপতি জাকির হোসেনের নেতৃত্বে রাজারহাট উপজেলার সদর ও বিদ্যানন্দ ইউনিয়নে, রৌমারীতে জেলার সাংগঠনিক সম্পাদক শাহ মোমেন ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আলম ভাইয়ের নেতৃত্বে শাপলা চত্বরে, রাজিবপুর উপজেলা সদরে শিপন মাহমুদের নেতৃত্বে, কৈলাশ রবিদাসের নেতৃত্বে নাগেশ্বরী উপজেলা ও মামুনুর রশিদের নেতৃত্বে রায়গঞ্জ ইউনিয়নে, চিলমারীতে জেলা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক জামিউল ইসলাম বিদ্যুত এর নেতৃত্বে উপজেলা সদর, মাহমুদুল হাসান বাবু ও ভারত চন্দ্রের নেতৃত্বে রমনা ইউনিয়নে, মেহেদী হাসানের নেতৃত্বে চর শাখাহাতিতে এবং উলিপুরে শাহিনুল ইসলামের নেতৃত্বে পাঁচপীর স্টেশন ও দুর্গাপুর বাজারে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

এ প্রসঙ্গে রেল নৌ যোগাযোগ ও পরিবেশ উন্নয়ন গণকমিটির কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক নাহিদ হাসান নলেজ আজকের কুড়িগ্রামকে জানায়, চিলমারীতে একসময় জাহাজ তৈরীর কারখানা ছিলো। নৌপথে ভুটান, নেপাল ও ভারতের আসাম প্রদেশের সাথে ব্যবসার উর্বর জমিন ছিলো কুড়িগ্রামের বিস্তৃর্ণ এলাকা। দেশভাগের পর থেকেই কুড়িগ্রামের অবস্থার অবনতি হতে শুরু করে। গত কয়েক বছর ধরে সরকারের পরিসংখ্যান ব্যুরো জানিয়ে আসছে যে কুড়িগ্রাম হলো দেশের শীর্ষ দরিদ্র জেলা এবং প্রতিবছর যে দারিদ্রতার যে হার বাড়ছে সে কথাও জানিয়েছে সরকারের এই সংস্থাটি। বর্তমানে এর দারিদ্রের হার ৭০ .৮০ ভাগ। এই অসম দারিদ্রের বিপরীতে বর্তমান এবং বিগত সরকার গুলোকে তেমন উদ্যোগী হতে দেখা যায়নি। আমরা আশাবাদী সরকার আমাদের দাবি গুলো আমলে নিয়ে কুড়িগ্রাম জেলার জন্য বিশেষ বরাদ্দ ঘোষণা করবে এবং অন্যান্য দাবিগুলো বাস্তবায়নের মধ্যদিয়ে কুড়িগ্রাম জেলাকে বাংলাদেশের মূল স্রোতে শামিল করবে।


ট্যাগঃ

   
 
আরও পড়ুন
 
 
Top